লড়াইয়ে হেরে যাওয়ার পর

কোন লড়াইয়ে হেরে যাওয়ার পর পালিয়ে গিয়ে হারিয়ে যাওয়ার যে চেষ্টা সেটাও একটা লড়াই, সেই লড়াইয়েও যদি হেরে যেতে হয় তবে দ্বিতীয় আরেকটি উপায়ই থাকে – ‘প্রে ফর মি’ বলে জীবনবাজি রেখে পুনরায় লড়াইয়ে ফিরে আসা। 

জুন মাসে জন্ম বলে বাবা-মা উনার নাম রেখেছিলেন জুন। ২০১২ সালের জুন মাস আসার দুমাস আগে এপ্রিলেই লড়াইয়ে হেরে গিয়ে পালিয়ে গিয়ে হারিয়ে গেলেন জুনভাই। জ্যাক রিচার সম্পর্কে তার ধারনা ছিল না, এখনো নেই – কিন্তু হারিয়ে যাওয়ার জন্য ইন্সটিংক্টই যথেষ্ট। জুনভাই প্রথমে চাকরী ছেড়ে দিলেন, তারপর হারিয়ে গেলেন। দুটো সেল নাম্বারের একটিও খোলা পাওয়া গেল না, পাঠানো মেসেজগুলো দুই দিন বাতাসে ঘোরাফেরা করে ফেরত আসতে লাগল। ফেসবুক আইডি ডিঅ্যাকটিভেট হয়ে গেল, টুইটারে অ্যাকাউন্ট ছিলই না, জিমেইলে মেইলের রিপ্লাই আসা বন্ধ হয়ে গেল। জুনভাইয়ের পরিচিত সব জায়গায় নক করেও ৩০শে এপ্রিলের পরের কোন খোঁজ পাওয়া গেল না। 

সর্বশেষ প্রচেষ্টা হিসেবে একদিন সকাল নটায় আমি জুনভাইয়ের বাসা খুঁজে বের করে বন্ধ কলাপসিবল গেটের সামনে দাড়িয়ে থাকলাম। মিনিট বিশেক দাড়িয়ে থেকে ডাকাডাকি করেও দরজা খোলা গেল না, ফিরে আসবো এমন সময় বিল্ডিং এর অন্য কোন বাসিন্দার বদান্যতায় কলাপসিবল গেটের ভেতরে ঢোকার সুযোগ পেয়ে গেলাম। কিন্তু জুন ভাইয়ের বাসায় কোন লোক ছিল না, দরজায় বড় বড় দুটো তালা। ভিজিটিং কার্ডের পেছনে ছোট্ট চিঠি লিখে তালার মাঝে গুজে রেখে ফেরত এলাম, কিন্তু কেউ যোগাযোগ করল না।

মাসখানেক পর এক ছুটির দিনে আবারও গেলাম। এবারও ডাকাডাকির কোন ফল পাওয়া গেল না, তবে কোন এক বাসার কাজের বুয়ার কারণে ঢুকে পড়তে পারলাম। দরজা খুলল জুনভাইয়ের রুমমেট জন। জুনভাই সংক্রান্ত কোন খবরই তার কাছ থেকে পাওয়া গেল না, তবে জুনভাইয়ের ছোট ভাইকে পাওয়া গেল জুনভাইয়ে বিছানায় ঘুমন্ত অবস্থায়। আমার সকল ধরনের প্রশ্নের উত্তরে তিনি শুধু একটা কথাই বললেন – ভাইয়াকে বলবো আপনাকে ফোন করতে। জুনভাই আমাকে আর ফোন করেন নি।

২০১৩ সালের জুন পেরিয়ে অক্টোবরের এক সন্ধ্যায় নতুন এক নাম্বার থেকে ফোন এল – হ্যালো, আমি জুন! সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে দেশ থেকে পালিয়ে গিয়ে হারিয়ে যাওয়ার লড়াইয়ে হেরে গিয়েছেন জুনভাই। পুরাতন লড়াইয়ে ফিরে আসা ছাড়া তার কোন বিকল্প ছিল না – পুরানো প্রতিদ্বন্দ্বীরাও প্রস্তুতি নিয়ে বসে আছে – দেড় বছর বাদে জুনভাইকে ফিরতে দেখে জুনভাইয়ের সামনেই অন্যদের জানিয়ে দিয়েছে – জুন এসেছে অক্টোবরে, এবার ক্যু হবে!< লড়াইয়ে প্রত্যাবর্তনে স্বাগতম জুনভাই। ফাইট জুনভাই! ফাইট টু উইন!! বেস্ট অব লাক!!!

About দারাশিকো

আমি নাজমুল হাসান দারাশিকো। লেখালিখির প্রতি ভালোবাসা থেকে লিখি। পেশাগত এবং সাংসারিক ব্যস্ততার কারণে অবশ্য এই ভালোবাসা এখন অস্তিত্বের সংকটে, তাই এই ওয়েবসাইটকে বানিয়েছি আমার সিন্দুক। যোগাযোগ - darashiko(at)gmail.com

View all posts by দারাশিকো →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *